অভিবাসনফরাসি নির্বাচন: প্রথম দফায় এগিয়ে অভিবাসনবিরোধী জোট, ইউরোপজুড়ে উদ্বেগ

ফরাসি নির্বাচন: প্রথম দফায় এগিয়ে অভিবাসনবিরোধী জোট, ইউরোপজুড়ে উদ্বেগ

- Advertisment -spot_img

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত আগাম সংসদ নির্বাচনের প্রথম দফায় এগিয়ে আছে অভিবাসন বিরোধী দল হিসেবে পরিচিত ন্যাশনাল ব়্যালি (আরএন)। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে মাঠ ধরে রেখেছে বাম জোট। অপরদিকে, ইইউ নির্বাচনের ধারাবাহিকতায় ভরাডুবি হয়েছে প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর জোটের।

৯ জুন ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভরাডুবির পর ফ্রান্সের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ বা ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি ভেঙে দিয়েছিলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ৷

রোববার (৩০ জুন) প্রথম দফায় ফ্রান্সের মূল ইউরোপীয় ভূখণ্ড এবং বিভিন্ন মহাদেশে অবস্থিত ফরাসি বিভাগগুলো মিলিয়ে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির মোট ৫৭৭টি আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার (১ জুলাই) সকালে ফরাসি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রকাশ করা চূড়ান্ত ফলে দেখা গেছে, প্রথম দফায় ২৯ দশমিক ২৫ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছে মারিন লো পেনের নেতৃত্বাধীন কট্টর ডানপন্থি ন্যাশনাল ব়্যালি (আরএন)। জোটসঙ্গী রক্ষণশীল রিপাবলিকান দলের একটি অংশের ভোট যোগ করলে কট্টর ডান জোটের মোট প্রাপ্ত ভোট দাঁড়ায় ৩৩ দশমিক ১৫ শতাংশে।

অন্যদিকে, ২৭ দশমিক ৯৯ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে নতুন বাম জোট নিউ পপুলার ফ্রন্ট (এনএফপি)। তবে নির্বাচনে ভরাডুবি হয়েছে এমানুয়েল মাক্রোঁ সমর্থিত ‘টুগেদার’ জোটের। তারা ২০ দশমিক শুন্য চার শতাংশ ভোট পেয়েছে। রিপাবলিকান (এলআর) দলের যে অংশটি একক নির্বাচন করেছে তারা পেয়েছে ৬ দশমিক ৫৭ শতাংশ ভোট।

যেসব প্রার্থী প্রথম দফা নির্বাচনে নিবন্ধিত ভোটার সংখ্যার অন্তত ১২ দশমিক পাঁচ শতাংশ ভোট পাবেন, তারা ৭ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় দফায় লড়ার সুযোগ পাবেন।

প্রথম দফায় নির্বাচিত ৭৬ সংসদ সদস্য
যেসব প্রার্থী প্রদত্ত ভোটের ৫০ শতাংশের বেশি পেয়েছেন, তাদের আর দ্বিতীয় দফায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে না।

ফরাসি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৫৭৭টি আসনের মধ্যে ৭৬ জন সংসদ সদস্য প্রথম দফাতেই ৫০ শতাংশের ওপর ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন মারিন লো পেনের জোট থেকে ৩৯ জন, বাম জোট থেকে ৩২ জন, এমানুয়েল মাক্রোঁর জোট থেকে দুই জন, রক্ষণশীল এলআর থেকে একজন এবং অন্যান্য ডান দল থেকে দুই জন।

এই হিসাবে, ৭ জুলাই দ্বিতীয় দফার নির্বাচন হবে ৫০১টি আসনে।

ন্যাশনাল ব়্যালির সম্ভাব্য বিজয়ে উদ্বেগ
এমানুয়েল মাক্রোঁর আগাম নির্বাচনের সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত ‘বুমেরাং’ হয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

মাক্রোঁর শরিকদের অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং জোটের বড় শরিকদের কারো সাথে আলাপ না করেই পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার মতো আত্নঘাতী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় গঠিত কর্তৃত্ববাদী ‘ভিসি রেজিম’ এর পর ফ্রান্সে প্রথমবারের মতো কট্টর ডান আদর্শের কোন দল ভোটের ফলাফলে প্রথম স্থানে উঠে এসেছে। আগামী ৭ জুলাই প্যারিসের ক্ষমতা ন্যাশনাল ব়্যালির হাতে যাওয়া সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো এবং বিশ্বব্যাপী উদার গণতান্ত্রিক মহলেও। ফ্রান্স জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্যের একটি।

আরএন ক্ষমতায় এলে ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে ফ্রান্সের অবস্থানে ব্যাপক পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। দলটি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

এর আগে নির্বাচনে অর্থ যোগাড়ে রাশিয়ান ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন মারিন লো পেন। এই ঘটনাও তার রাশিয়া সংশ্লিষ্টতাকে আরও পরিষ্কার করে তুলেছে।

ক্রেমলিনের সঙ্গে আরএন-এর এই নৈকট্য কিয়েভের জন্যও একটি বড় উদ্বেগের কারণ। এই যুদ্ধে এখন ইউক্রেনের সবচেয়ে কাছের মিত্রদের একটি প্যারিস।

কট্টর অভিবাসীবিরোধী নীতি
ভোটের মাঠে কট্টর ডানপন্থিদের কাছে অভিবাসন বরাবরই জনপ্রিয় ইস্যু৷ এবারের ফরাসি সংসদ নির্বাচননের প্রথম দফায়ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে অভিবাসন নিয়ে স্পষ্ট বিভাজন ফুটে উঠেছে৷

ন্যাশনাল ব়্যালি (আরএন) ক্ষমতায় এলে দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকা ফরাসি নাগরিকদের রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে না বলে তাদের নির্বাচনি ইশতেহারে উল্লেখ করেছে।

১৪ জুন ফরাসি টেলিভিশন বিএফএম টিভিতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ন্যাশনাল ব়্যালির (আরএন) প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী জর্দান বারদেলা বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হলে প্রথম সপ্তাহেই এমন একটি অভিবাসন আইন পাস করবো, যা অপরাধী এবং ইসলামপন্থি সন্ত্রাসীদের বহিষ্কারকে সহজতর করবে৷ এছাড়া আমি অভিবাসীদের নাগরিকত্ব সংক্রান্ত ভূমি আইনও বাতিল করবো৷

তিনি ফরাসি দৈনিক লো পারিজিয়াকে ১৭ জুন এক সাক্ষাৎকারে জানান, তিনি বিদেশি অপরাধীদের বহিষ্কারের সুবিধার্থে আইনি সময়সীমা ত্বরান্বিত করতে চান৷

অবশ্য তিনি স্বীকার করেছেন, এই ধরনের একটি বিধান বাস্তবায়ন করতে হলে তাকে প্রশাসনিক ও আইনি বাধা পেরোতে হবে৷
কট্টর এই রাজনৈতিক দলের ইশতেহারে অনিয়মিত অভিবাসীদের চিকিৎসা সুবিধা বা এইড মেডিকেল সুবিধা শুধু গুরুত্বপূর্ণ জরুরি চিকিৎসার ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ করার কথা বলা হয়েছে৷

দলটির প্রতিষ্ঠাতা মারিন লো পেনের বাবা জঁ-মারি লো পেন মূলত আবাসন ও অন্যান্য সুবিধার ক্ষেত্রে অভিবাসীদের চেয়ে ফরাসি নাগরিকদের অগ্রাধিকার দেওয়ার পক্ষে ছিলেন৷ তারই ধারাবাহিকতায় তারা নির্বাচনে জিতলে সামাজিক আবাসন এবং কর্মসংস্থানে ফরাসিদের জন্য অগ্রাধিকার দেয়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে৷

সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest news

বাংলাদেশে চলমান অস্থিরতায় প্রবাসীদের সাথে নিউইয়র্ক মেয়রের সংহতি

বাংলাদেশের চলমান বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের প্রতি সংহতি জানালেন মেয়র এরিক অ্যাডামস এরিক অ্যাডামস বাংলাদেশের চলমান সহিংস বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ...

জার্মানির বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে কোটা আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে বিক্ষোভ

জার্মানি প্রতিনিধি কোটা সংস্কারের দাবীতে চলমান আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে সংহতি জানিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে বার্লিনের বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ মিছিল...

বাংলাদেশে ছাত্র-ছাত্রীদের হত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে ইতালি প্রবাসীরা

মালিক মনজুর ইতালি প্রতিনিধি বাংলাদেশে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও ছাত্রলীগ দ্বারা সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের হত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদে সাংবাদিক...

গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা টাইমসের সাংবাদিক মেহেদী নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা রাজধানীর যাত্রবাড়িতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে এক সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। নিহত সাংবাদিকের নাম...
- Advertisement -spot_img

ইউরোপের কাছে সহায়তার আর্জি তিউনিশিয়ার

ডেস্ক রিপোর্ট তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বুধবার ইউরোপীয় দেশগুলোর কাছে আর্থিক সহায়তা বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়েছেন। সাব-সাহারান আফ্রিকা থেকে আসা অভিবাসী প্রবাহ মোকাবেলা...

আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন।বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সন্ধ্যায়...

Must read

বাংলাদেশে চলমান অস্থিরতায় প্রবাসীদের সাথে নিউইয়র্ক মেয়রের সংহতি

বাংলাদেশের চলমান বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের প্রতি সংহতি জানালেন...

জার্মানির বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে কোটা আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে বিক্ষোভ

জার্মানি প্রতিনিধি কোটা সংস্কারের দাবীতে চলমান আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে...
- Advertisement -spot_img

You might also likeRELATED
Recommended to you