মধ্যপ্রাচ্যকে এই ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট পেজেশকিয়ান?

কে এই ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট পেজেশকিয়ান?

- Advertisment -spot_img

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী জয় পেয়েছেন সংস্কারপন্থী প্রার্থী মাসুদ পেজেশকিয়ান। তিনি ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির আশীর্বাদপুষ্ট রক্ষণশীল সাঈদ জালিলিকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

মূলত সামাজিক স্বাধীনতার ওপর কম বিধিনিষেধ এবং আরও বাস্তববাদী পররাষ্ট্রনীতির জন্য লাখ লাখ ইরানিদের সমর্থন পেয়েছেন মাসুদ পেজেশকিয়ান। বিশ্বশক্তিগুলো তাকে স্বাগত জানাতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

তবে বিশ্লেষকরা বলেছেন, পেজেশকিয়ান ইরানের দ্রুত অগ্রসরমান পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে একটি উত্তেজনাপূর্ণ স্থবির পরিস্থিতি থেকে শান্তিপূর্ণ উপায়ের দিয়ে অগ্রসর হতে পারেন।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেজেশকিয়ানকে ভোট দেওয়া অধিকাংশ মানুষই শহুরে মধ্যবিত্ত এবং তরুণ বলে মনে করা হয়। তারা ইসলামপন্থি গোঁড়ামির কারণে ইরানে বহু বছর ধরে চলমান সামাজিক নিরাপত্তা লঙ্ঘনে অতিষ্ট হয়ে পড়েছেন। এই কট্টরপন্থি সরকারব্যবস্থা দেশটি জনসাধারণের ভিন্নমতকে দমিয়ে রাখে।

ইরানে একটি বাস্তবসম্মত পররাষ্ট্রনীতি প্রচারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ৬৯ বছর বয়সী সাবেক এই কার্ডিয়াক সার্জন। ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তির পুনর্নবীকরণ নিয়ে পশ্চিমা শক্তিগুলোর সঙ্গে ‘গঠনমূলক আলোচনা’ করার আহ্বান জানিয়েছেন পেজেশকিয়ান। এই চুক্তির আওতায় ইরানের ওপর আরোপিত পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাগুলো শিথিল করার বিনিময়ে পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ করতে সম্মত হয়েছিল তেহরান।

একইসঙ্গে উত্তেজনা কমাতে সামাজিক উদারনীতি এবং রাজনৈতিক বহুত্ববাদের সম্ভাবনাগুলোকে উন্নত করার উপর জোর দিয়েছেন তিনি।

ইরানি শাসনের দ্বৈত ব্যবস্থার কারণে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি বা মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোকে সমর্থনের বিষয়ে বড় ধরনের কোনও নীতিগত পরিবর্তনের সূচনা করতে পারেন না। দেশের শীর্ষ রাষ্ট্রীয় সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি।

তবে প্রেসিডেন্ট ইরানের নীতির ধরনকে প্রভাবিত করতে পারেন। একইসঙ্গে ৮৫ বছর বয়সী খামেনির উত্তরসূরি নির্বাচনেও ব্যাপক ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ইরানের শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যক্তিত্ব এবং সরকারি শাসকদের মোকাবিলা করার কোনও উদ্দেশ্য ছাড়াই দেশটির ধর্মতান্ত্রিক শাসনের প্রতি অনুগত পেজেশকিয়ান। টেলিভিশন বিতর্ক ও সাক্ষাৎকারে খামেনির নীতির বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

পেজেশকিয়ান অব্যবস্থাপনা, রাষ্ট্রীয় দুর্নীতি এবং মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় জর্জরিত অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

যেহেতু নির্বাচিত পেসিডেন্টের ক্ষমতা খামেনির হাতে সীমাবদ্ধ তাই অনেক ইরানি স্বদেশে রাজনৈতিক বহুত্ববাদে আগ্রহী। তবে বিদেশে ইরানের বিচ্ছিন্নতার অবসান চায় এমন ইরানিরা মনে করছেন, সংস্কারপন্থি পেজেশকিয়ান চেষ্টা করলেও দেশটির শাসক তাকে বড় ধরনের কোনও পরিবর্তন করতে দেবে না।

একজন আইন প্রণেতা হিসেবে ২০০৮ সাল থেকে জাতিগত সংখ্যালঘুদের অধিকারকে সমর্থন করে আসছেন পেজেশকিয়ান। রাজনৈতিক ও সামাজিক ভিন্নমতের ওপর সরকারি সংস্থার দমন-পীড়নের সমালোচনা করেছেন তিনি।

২০২২ সালে মাহশা আমিনির মৃত্যুর বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছিলেন পেজেশকিয়ান। নারীদের পোশাক বিষয়ক নীতি আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার হওয়ার পর পুলিশি হেফাজতে তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে ইরানজুড়ে টানা কয়েক মাস অস্থিরতা চলে।

প্রথম দফায় ভোট দেওয়ার পর পেজেশকিয়ান বলেন, ‘আমরা হিজাব আইনকে সম্মান করব। তবে নারীদের প্রতি কোনও প্রকার হস্তক্ষেপ বা অমানবিক আচরণ করা উচিত নয়।’

গত মাসে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সভায় ২০২২-২৩ সালে হিজাব আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে কারাবন্দি শিক্ষার্থীদের সম্পর্কে করা একটি প্রশ্নের জবাবে পেজেশকিয়ান বলেছিলেন, ‘রাজনৈতিক বন্দিদের বিষয়টি আমার ক্ষমতার মধ্যে নেই। এ বিষয়ে আমি কিছু করতে চাইলেও আমার কোনও কর্তৃত্ব নেই।’

১৯৮০’র দশকে ইরান-ইরাক যুদ্ধের সময়ে একজন যোদ্ধা ও চিকিৎসক পেজেশকিয়ানকে প্রথম সারিতে মেডিকেল টিম মোতায়েনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। ২০০১-৫ সাল পর্যন্ত খাতামির দ্বিতীয় মেয়াদে তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

ইরানের ১৪তম প্রেসিডেন্ট পেজেশকিয়ান। ১৯৫৪ সালে জন্মগ্রহণকারী নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হার্ট পেজেশকিয়ান সার্জারিতে বিশেষজ্ঞ ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ২০০১ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত ইরানের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ইরানের উত্তরাঞ্চলীয় তাবরিজ অঞ্চল থেকে ৫ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া, তার ঝুলিতে রয়েছে ইরানের দশম জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা।

১৯৯৪ সালে একটি গাড়ি দুর্ঘটনায় স্ত্রী ও এক সন্তানকে হারান পেজেশকিয়ান। এই দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া দুই ছেলে ও এক মেয়েকে একা বড় করেন তিনি। কখনও দ্বিতীয় বিয়ে করবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest news

বাংলাদেশে চলমান অস্থিরতায় প্রবাসীদের সাথে নিউইয়র্ক মেয়রের সংহতি

বাংলাদেশের চলমান বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের প্রতি সংহতি জানালেন মেয়র এরিক অ্যাডামস এরিক অ্যাডামস বাংলাদেশের চলমান সহিংস বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ...

জার্মানির বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে কোটা আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে বিক্ষোভ

জার্মানি প্রতিনিধি কোটা সংস্কারের দাবীতে চলমান আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে সংহতি জানিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে বার্লিনের বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ মিছিল...

বাংলাদেশে ছাত্র-ছাত্রীদের হত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে ইতালি প্রবাসীরা

মালিক মনজুর ইতালি প্রতিনিধি বাংলাদেশে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও ছাত্রলীগ দ্বারা সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের হত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদে সাংবাদিক...

গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা টাইমসের সাংবাদিক মেহেদী নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা রাজধানীর যাত্রবাড়িতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে এক সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। নিহত সাংবাদিকের নাম...
- Advertisement -spot_img

ইউরোপের কাছে সহায়তার আর্জি তিউনিশিয়ার

ডেস্ক রিপোর্ট তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বুধবার ইউরোপীয় দেশগুলোর কাছে আর্থিক সহায়তা বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়েছেন। সাব-সাহারান আফ্রিকা থেকে আসা অভিবাসী প্রবাহ মোকাবেলা...

আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন।বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সন্ধ্যায়...

Must read

বাংলাদেশে চলমান অস্থিরতায় প্রবাসীদের সাথে নিউইয়র্ক মেয়রের সংহতি

বাংলাদেশের চলমান বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের প্রতি সংহতি জানালেন...

জার্মানির বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে কোটা আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে বিক্ষোভ

জার্মানি প্রতিনিধি কোটা সংস্কারের দাবীতে চলমান আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে...
- Advertisement -spot_img

You might also likeRELATED
Recommended to you